কি দিয়ে অভিষেক পুত্রের মুখ দেখলেন রাজ্যপাল? অবাক হয়ে যাবেন

কি দিয়ে অভিষেক পুত্রের মুখ দেখলেন রাজ্যপাল

এবার রুপোর বাটি ও চামচ নিয়ে সস্ত্রীক অভিষেকের ছেলেকে হাসপাতালে দেখতে গেলেন জদীপ ধনকড়। রাজ্যপাল অবশ্য সকালেই অভিষেক ব্যানার্জীকে তার পুত্র সন্তানের জন্য অভিনন্দন জানান। আর তারপরেই স্ত্রী নিয়ে হাজির হয় হাসপাতালে। অভিষেক–রুজিরার পুত্র সন্তান হয় মঙ্গলবারে।

রুজিরা একটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি হয় সোমবার, আর তার পুত্র হয় মঙ্গলবারে, সেই খবর পেয়েই বুধবার সকালেই অভিনন্দন জানায় রাজ্যপাল। আর তার পরেই রুপার বাটি চামচ নিয়ে সেই সন্তানের মুখ দেখতে যায়। অভিষেককে তার সদ্যোজাত সন্তানের কথা জিজ্ঞাসা করলে, তিনি বলেন আমি এতোটাই খুশি, যা ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না।

কেউ ভাবতে পারে নি এমনটা , মানে রাজ্যপাল পৌছে যাবে অভিষেকের পুত্রকে দেখতে। অনেকের মতে , এটা রাজ্য সরকারের সাথে ভাব জমানোর জন্যই এই কাজ করেছেন তিনি, তার সাথে রাজ্য সরকারের সংঘাত লেগেই আছে। আর সেই দ্বন্দ্বকে কমানো জন্যই এই কাজ করেছেন তিনি। এর আগেও তিনি ভাই ফোটা খাওয়ার জন্য মমতা ব্যানার্জীর বাড়িতে যেতে চেয়েছিলেন , কিন্তু মমতা ব্যানার্জীর সময় না থাকাতে, কালীপুজাতে উপস্থিত ছিলেন তিনি সস্ত্রীক।

তার সাথে রাজ্যের অনেক কিছু নিয়েই কথা কাটাকাটি বেঝেছিল। প্রথম তার সূত্রপাত হয়, যখন তিনি গিয়ে যাদবপুর থেকে বাবুল সুপ্রিয়কে বাচিয়ে নিয়ে আসে, তার পরে জিয়াগঞ্জের সেই মৃত্যুর ওপরেও মন্তব্য করে, রাজ্য সরকারের ওপরেই তোপ দাগেন তিনি। এর পর থেকেই নবান্ন ও রাজভবনের মধ্যে ঝামেলা বেধেই রয়েছে। এবার সেই ঝামেলার অবসানের জন্য এই পদক্ষেপ রাজ্যপালের, এটাই অনেকে মনে করছে।