ঐতিহাসিক রাসমেলার সাংস্কৃতিক মঞ্চের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেখা মিলল না তৃনমূল মন্ত্রীর

ঐতিহাসিক রাসমেলার সাংস্কৃতিক মঞ্চের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেখা মিলল না তৃনমূল মন্ত্রীর

কোচবিহার: কোচবিহার পৌরসভা পরিচালিত রাসমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেখা না গেলেও, দেবর্ত্র স্ট্রাস্ট বোর্ড পরিচালিত মদনবাড়ির রাসযাত্রার অনুষ্ঠানে সক্রিয় ভাবেই উপস্থিত ছিলেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্র নাথ ঘোষ।

কোচবিহার রাসমেলা সাংস্কৃতিক মঞ্চে সোমবার রাতে পৌরসভা পরিচালিত রাসমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হয়। এবারের এই সাংস্কৃতিক মঞ্চের উদ্বোধন করেন রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব। ঘটা করে পক্ষকাল ব্যাপী এই মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠান হলেও সেখানে দেখা গেল না রাজ্যের উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তেরর মন্ত্রী রবীন্দ্র নাথ ঘোষকে।

যদিও এই অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসাবে আমন্ত্রিত ছিলেন তিনি। এদিনের রাতে রাসমেলার মূল ফটকের দ্বারোদঘাটন করে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন কোচবিহার রামকৃষ্ণ মঠের অধ্যক্ষ বিজ্ঞেয়ানন্দ মহারাজ। এখানে রবীন্দ্রনাথ বাবুর উজ্জ্বল অনুপস্থিতি ছিল চোখে পরার মতো।

যদিও রবি বাবু জানান,তিনি জরুরী কাজে শিলিগুড়িতে ছিলেন। সেখান থেকে আসতে দেরি হওয়ার কারনেই রাসমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি উপস্থিত থাকতে পারেননি। তবে মদনমোহন বাড়ির রাসযাত্রা অনুষ্ঠানে তিনি ছিলেন বলে জানিয়েছেন।

পৌরসভা পরিচালিত রাসমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান নিয়ে প্রথম থেকে দানা বেঁধেছে বিতর্ক। এই অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত হননি কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক। এনিয়ে দলতন্ত্রের অভিযোগ উঠেছে কোচবিহার পৌরসভার বিরুদ্ধে। তবে তৃণমূল পরিচালিত কোচবিহার পৌরসভার এই রাসমেলা উদ্বোধনে রবীন্দ্রনাথ ঘোষের অনুপস্থিতি নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চর্চা।

তৃণমূলের অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক নয়া সমীকরণে কোচবিহার পৌরসভার পৌরপতি ভূষণ সিং-এর সাথে রবীন্দ্র নাথ ঘোষের দূরত্ব তৈরি হয়েছে বলে রাজনৈতিক মহলের ধারনা। তবে কি একারনেই অনুপস্থিত থাকলেন রবিবাবু? বিগত বেশ কয়েকবছর থেকে এই মেলার উদ্বোধন করে আসছেন রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। এবারে তাতেও পড়ল ছেদ, মেলার সাংস্কৃতিক মঞ্চের উদ্বোধন করেছেন পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব।