এবার থেকে বাঘের নাম ধরে ডাকলে বা তার ভিডিও তুললেই ফাইন, হতে পারে জেল

153

এবার থেকে এক নতুন নিয়ম চালু হল দেরাদুন টাইগার রিজার্ভে, সেখানে এখন নতুন নিয়ম বাঘের নাম ধরে ডাকলেই হবে মোটা টাকার ফাইন। আর তার সাথে তারা আরেকটি নিয়ম জুড়ে দিয়েছে সেটা হল এখন থেকে ছবি তোলা বা বাঘের ভিডিও করলেই হতে পারে জেল।

এই রকম আপডেট পেতে লাইক করুন

এই ন্যাশনাল পার্কের তরফ থেকে জানা গেছে, যখন পর্যটকেরা আসে তখন তারা বাঘকে বিভিন্ন নামে ডাকে, আর তাদের বিরক্ত করে এতে বাঘের মানসিক ভারসাম্য নষ্ট হয়, তাই এখন থেকে এরকম কেউ করলেই হবে মোটা টাকার ফাইন। বিদেশি পর্যটকের বছরেই ভিড় জমায়, আর এখন তাদের এই বাঘকে বিরক্ত করা একটা নেশার মতো হয়ে গেছে। তাই এইসব রুখতে এবার করা পদক্ষেপ নিল এই জাতীয় উদ্যান।

এই জাতীয় উদ্যানে মোট এখন ৩৪০ টি বাঘ আছে, যার মধ্যে বাঘ বাঘিনী প্রায় সামানুপাতিক, পর্যটকেরা সবসময়ই বাঘকে বিরক্ত করতে থাকে, এবার যে নতুন নিয়ম তৈরী করা হয়েছে তা লঙ্ঘন করলেই বনসংরক্ষণ আইন হিসেবে ৯ ও ৫০ ধারায় শাস্তি দেওয়া হতে পারে।

পর্যটকেরা এর আগে সাহস পায় নি, এদের সাহস বাড়িয়েছে গাইডেরা, কারন যখন তারা এই উদ্যান পরিদর্শন করিয়ে দেখায় তখন তাদের মনোরঞ্জন করার জন্য বাঘকে উলটা পালটা নামে ডাকে, আর তাতে তারা অনেক খুশি হয়, আর এর পর থেকেই তাদের সাহস পুরো মাত্রায় বেড়ে গেছে ।

এর সাথে উদ্যান কর্তৃপক্ষ জানায়, বাঘের ছবি তুললেও তা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধা, এর জন্য অনেক কঠিন শাস্তি হতে পারে তাদের। তারা যখন বাঘের ছবি তোলে তখন সেই ছবি তারা স্যোশাল নেটওয়ার্কে পোস্ট করে , আর তারফলে অনেক সময় সেই খবর চোরা শিকারীদের কাছে পৌছে যায়।

কিছুদিন আগেই জানা গেছে রাজস্থানের রণথম্বোর জাতীয় উদ্যানের বাঘ ম্যানিটার হয়ে গেছে , এর পেছনে কারন হল মানুষ পুরোদমে তাদের বিরক্ত করত, আর তার ফলে মানুষের প্রতি তাদের ক্ষোভ জন্মায় ও তার পর থেকেই তারা ম্যানিটার হয়ে যায়, এই কাজ যেনো করবেট ন্যাশনাল পার্কে না হয় তার জন্যই এই আইন প্রনয়ণ করা হয়েছে।

এই রকম আপডেট পেতে লাইক করুন