এবার একবার চার্জেই গাড়ি পাড়ি দেবে ২৪০০ কিমি, আমূল আবিষ্কারে শোরগোল বিশ্ব জুড়ে

174

বৈদ্যুতিক গাড়ি নিয়ে এখন সব দেশ মেতেছে। এখন সবার নজর এই বৈদ্যুতিক গাড়ির ওপরে। তাই এবার টেসলা তাদের নতুন বৈদ্যুতিক গাড়ি লঞ্চ করেছে। যার দাম শুনলে অনেকটাই ভিমরি খাওয়ার জোগাড়। কারন যে গাড়ির ব্যাটারির দাম ২৪ লক্ষ টাকা হতে পারে তাহলে ভেবে নিন গাড়ির দাম কত হবে? ব্যাটারির দাম এতো হলেও তার গূণ তেমন নই।

মানে দাম হিসেবে তার কার্য বেশী যুতসই নয়। সেই ব্যাটারি এক চার্জ দিলে গাড়ি মাত্র যাবে ৩০০ কিমি। তাই এমন গাড়ি কেউ ঠিক ঠাক এফোর্ড করতে পারলেও ব্যাটারী এতো বারবার চেঞ্জ করতে পারবে কিনা তা একটু সন্দেহের। তাই এটা একটা চিন্তার বিষয়।

কিন্তু যদি দেখা যায় এমন এক ব্যাটারী আছে যার খরচ টেসলার ব্যাটারি থেকে অনেক গূন দাম কম, যার দাম মাত্র ৪ লক্ষ টাকার মতো হতে পারে, যা আবার এক চার্জেই চলবে প্রায় ২৪০০ কিলোমিটার। আর তা অনায়াসে অনেক বেশী চলার ক্ষমতা রাখে, তাহলে গাড়ি শিল্পে এক নতুন বিপ্লবের সুর্য উদয় হবে। তো যেমন ভাবা তেমন কাজ, এই ধরণের এক ব্যাটারি আবিষ্কার করেছে নেভির প্রাক্তন লেফট্যানেন্ট ট্রেভর জ্যাক্সন।

তিনি এই ব্যাটারী আবিষ্কার করেছেন। আর সেই ব্যাটারীর মানও খুব উচু দরের। অনেকেই এই ব্যাটারির সুনাম করে বলেছে এটা একেবারে গেম চেঞ্জার ব্যাটারি। কিন্তু কয়েকজন ব্যাটারির সুনাম করলেও কয়েকজন এর বিরুদ্ধে বলেছে, কয়েকজন বলেছে, এটা একেবারে নিন্মমানের কারন জ্যাক্সন যা দিয়ে এটা তৈরী করেছে তা অনেক আগেই তৈরী করে গাড়ি কোম্পানীরা তাদের গাড়ইতে ব্যবহার করে ফেলেছে, কিন্তু তেমন লাভ হয় নি, তাই এটাও যে হবে না তা বোঝা যাচ্ছে।

কিন্তু এই কথার উত্তরে অনেকে বলেন দিন বদলেছে। তাই এখন আর তার গুনমানও আর আগের মতো নেই, আগের থেকে অনেক উন্নত হয়েছে, এই ব্যাটারিতে সব থেকে সস্তা ধাতু অ্যালুমিনিয়াম ব্যবহার করা হয়। আর এই অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে তৈরী ব্যাটারি অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ে সংশাপত্র পেয়ে গেছে। আশা করা যায় এই ব্যাটারি ব্যবহার করে গাড়ি শিল্পে অনেক উন্নতি হবে যা আগে কখনো হয় নি।

এই রকম আপডেট পেতে লাইক করুন