ফুসফুসের এই সব কার্যকারিতার উপর জোর দিলেই ওজন থাকবে নিয়ন্ত্রণে!

261
ফুসফুসের এই সব কার্যকারিতার উপর জোর দিলেই ওজন থাকবে নিয়ন্ত্রণে

স্লিম ট্রিমের যুগে বাড়তি ওজন বা মোটা হয়ে যাওয়া আজকের দিনে প্রায় সকলের সমস্যা। ওজন কমিয়ে নিজেকে তন্বী রূপে দেখতে বিভিন্ন ডায়েট এবং রোজ জিমে গিয়ে ঘাম ঝড়ানো যখন চাইলেও হয়ে ওঠে না তখন আপনার ওজন ঘরে বসে কমিয়ে ফেলুন ফুসফুসের সাহায্যে। ফুসফুসের শ্বাস প্রশ্বাসের হার বাড়িয়ে ফেলুন ব্রিদিং এক্সারসাইজের মাধ্যমে আর পেয়ে যান রোগা হওয়ার সহজ উপায় ।

দৈনন্দিন ব্যস্ততার মধ্যে সঠিক পুষ্টি, ডায়েট, জিমে যখন ফাঁকি পড়ছে তখন ভরসা রাখুন ব্রিদিং এক্সারসাইজ এর ওপর। এবার প্রশ্ন একটাই ঠিক কিভাবে ফুসফুসের কার্যকারিতার মাধ্যমে ওজন কমানো সম্ভব?

সাধারণত চর্বিতে থাকে কার্বন, হাইড্রোজেন ও অক্সিজেন পরমাণু৷ এই পরমাণুর বন্ধনকে ভেঙে ফেলতে ওজন কমানো সম্ভব৷ অক্সিডেশন পদ্ধতিতে এই পরমাণু বন্ধন ভাঙার কাজ হয়ে থাকে। চর্বি কোষের কার্বন পরমাণু শ্বাসের সঙ্গে নেওয়া অক্সিজেনের সাহায্যে জাড়িত হয় এবং তৈরি করে কার্বন ডাই অক্সাইড, শ্বাসের সঙ্গে তা বেড়িয়ে যায়৷ আর চর্বি কোষের পরে থাকা হাইড্রোজেনের সঙ্গে অক্সিজেন মিলিত হলে তৈরি হয় জল৷ কাজেই শ্বাস–প্রশ্বাসের মাধ্যমে যত বেশি অক্সিজেন শরীরে ঢোকানো যায় ওজন কমবে তত দ্রুত। ঠিক এইভাবেই শরীরের 80% চর্বি ভেঙে জলে পরিণত করতে পারে ফুসফুস।তবে খাওয়া দাওয়া এবং জীবনযাত্রার ক্ষেত্রেও আনতে হবে কিছু পরিবর্তন।

** কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার কে এড়িয়ে চলতে হবে।

** ফাস্টফুড, জাঙ্কফুড, কোল্ডড্রিংক কে যতটা সম্ভব খাবারের লিস্টের বাইরে রাখুন।

** দিনে আধঘন্টা জোরে হাঁটুন, সাইক্লিং করুন, সাঁতার কাটুন। তবে এক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে হাল্কা হাঁপিয়ে গেলেও শ্বাসকষ্ট যেন না হয়।

** ধূমপান বর্জন করুন, এতে ফুসফুসের কার্যকারিতা বাড়বে।

** বায়ুদূষণ থেকেও ফুসফুসের কাজে ব্যাঘাত ঘটে, এক্ষেত্রে নজর রাখুন।

** ফুসফুসের কোনো রোগ থাকলে চিকিৎসার মাধ্যমে তা নিয়ন্ত্রণে এনে ডিপ ব্রিদিং করুন।

এই রকম আপডেট পেতে লাইক করুন