OMG! কেমো থেরাপি বন্ধের ঠিক পরেই উধাও ক্যান্সার, অবাক চিকিৎসক

82

কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের পেডিয়াট্রিক সার্জারি বিভাগে ঘটল এক বিস্ময়কর ঘটনা। সন্তানের ক্যান্সার হয়েছে ভেবে হাসপাতালের বেডে শিশুকে রেখে পালিয়ে যায় মা। কিন্ত ধীরে ধীরে ক্যান্সারমুক্ত হয়ে ওঠে ওই শিশু। ২০১৭ সালে জন্ম হয় ওই শিশুর। তারপর তার মেরুদণ্ডের নিচের দিকে একটি বড় টিউমার হয়।

চিকিৎসকদের কাছে গেলে চিকিৎসকরা বলেন, ওই টিউমারে রয়েছে ক্যান্সার সেল। ভয়ে সেই শিশুকে হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যান মা। কিন্তু কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসকরা হাল ছেড়ে দেননি। বায়োপসি করে দেখা যায় মস্তিষ্কের ক্যানসারের একটি বিরলতম কোষ রয়েছে ওই টিউমারে।

তারপর অস্ত্রপ্রচার করে ওই টিউমারকে বাদ দেওয়া হয়। পরে শিশুটির আরও একটি টিউমার ধরা পড়ে। এটি এবার পেটের ভিতরে। এই টিউমারেও ছিল একটি ক্যান্সার সেল। এদিকে কেমো থেরাপির যন্ত্রণা সহ্য করতে পাচ্ছিলনা শিশুটি। তারপর চিকিৎসকরা সিদ্ধান্ত নেন কেমো থেরাপি বন্ধ করার।

এরপরেই ঘটতে থাকে বিস্ময়কর ঘটনা। কেমো থেরাপি বন্ধ করার পরেই ছোট হতে থাকে পেটের ভিতরের টিউমারটি। পরে পরীক্ষা করে বোঝা যায় টিউমারটি উধাও হয়ে গিয়েছে। চিকিৎসা বিজ্ঞানে এমন ঘটনা বিরলতম বলেই জানান ডা. অজয়কুমার দাস। তবে তিনি বলেন, ৫ বছর না হলে কিছু বলা যাবেনা যে ওই শিশুটি সমূর্ণ বিপদমুক্ত কিনা।

এই রকম আপডেট পেতে লাইক করুন