গান্ধী সংকল্প যাত্রায় হাঁটলেন কোচবিহার কেন্দ্রের সাংসদ নিশীথ প্রামানিক

95

কোচবিহার: গান্ধিজীর সার্ধশতবর্ষ উপলক্ষে রাজ্যব্যাপী গান্ধী সংকল্প যাত্রা শুরু হয় মঙ্গলবার। সারা রাজ্যের সাথে কোচবিহারেও সূচনা হল এই গান্ধী সংকল্প যাত্রার। বুধবার ভারতীয় জনতা পার্টির উদ্যোগে এই কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। এদিন সংকল্প যাত্রা কোচবিহার জুট শিল্পকেন্দ্র চকচকা থেকে শুরু হয়ে একটি সভার মাধ্যমে তা শেষ হয় কোচবিহার ২ নম্বর ব্লকের পুন্ডিবাড়ীতে। এদিনের এই গান্ধী সংকল্প যাত্রায় নেতৃত্ব দেন কোচবিহার জেলা বিজেপি সভানেত্রী মালতি রাভা, সাংসদ নিশীথ প্রামানিক, জেলা সম্পাদক সঞ্জয় চক্রবর্তী ও সুকুমার রায় সহ অন্যান্যরা।জানা গেছে, এই সংকল্প যাত্রা কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের ১৫০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করবে জেলা বিজেপি নেতৃত্ব। সব মিলিয়ে সারা রাজ্যে সাড়ে ছয় হাজার কিলোমিটার পদযাত্রা করবে বিজেপি কর্মীরা। সর্বাধিক পরিমাণে গ্রাম ও মণ্ডলেই হবে এই প্রচার কাজ। সকাল থেকে সন্ধ্যে পর্যন্ত হবে পদযাত্রা। দুপুরবেলা শ্রমিক ভোজন ও বিশ্রাম।

এই রকম আপডেট পেতে লাইক করুন

এবং সন্ধ্যেবেলা বড় মিটিং হবে। যে যে লোকসভায় বিজেপি জিতেছে সেখানে সাংসদরা সশরীরে থাকবেন। যে লোকসভায় বিজেপি সাংসদ নেই সেখানে স্থানীয় বিধায়ক, পঞ্চায়েত, জেলা পরিষদ ও পঞ্চায়েত সমিতি-সহ অন্যান্য নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা থাকবেন।এদিনের এই যাত্রা প্রসঙ্গে সাংসদ নিশীথ প্রামানিক বলেন, গান্ধীজির ১৫০ তম জন্মবর্ষ উপলক্ষে বিজেপির জনসংযোগ যাত্রার অঙ্গ হিসাবে ও জেলাজুড়ে শান্তির বার্তা দিতেই গোটা দেশে আমরা পথে নেমেছি। সেই লক্ষ্যেই কোচবিহারেও এই যাত্রার সূচনা হল। কোচবিহারের শান্তিপ্রিয় মানুষকে এক শ্রেণীর রাজনৈতিক কর্মীরা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে শান্ত কোচবিহারকে অশান্ত করার চক্রান্ত চালাচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে আমরা বিরাট জনমত গড়ে তোলার লক্ষ্যকে সামনে রেখে এই যাত্রাকে বেছে নিয়েছি।

এই রকম আপডেট পেতে লাইক করুন