ঘর থেকে রহস্যজনক অবস্থায় এক দম্পতির দেহ উদ্ধার করল পুলিশ

53

মালদা, ০১ জুলাইঃ শোবার ঘর থেকে রহস্যজনক অবস্থায় এক দম্পতির দেহ উদ্ধার করল পুলিশ।রবিবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে, বামনগোলা থানার জগদ্দলা গ্রামের দুর্গামন্দির পাড়া এলাকায় । ওই নব দম্পতির মধ্যে মহিলাটি ঘরের মেঝেতে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়েছিল । এবং স্বামীর গলায় গামছা জড়ানো অবস্থায় সিলিং-এ ঝুলছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ।যদিও গহবধূর  পরিবারের অভিযোগ,নিজের স্ত্রীকে সন্দেহ করেই মাথায় হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে খুন করেছে জামাই। পরে জামাই গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা হয়েছে। পুরো ঘটনাটি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে বামনগোলা থানার পুলিশ।

এই রকম আপডেট পেতে লাইক করুন

 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,  মৃত দম্পতির নাম মিঠুলাল বৈদ্য (২৮) এবং যোগিতা বৈদ্য(২০)। গত এক বছর আগে মিঠুলালের সঙ্গে সম্বন্ধ করে বিয়ে হয় গুরুল্যা গ্রামের বাসিন্দা যোগিতার। মিঠুলাল পেশায় দিনমজুর ছিল। কিন্তু বিয়ের পর থেকে শ্বশুরবাড়ির সহযোগিতায় জামাই স্বর্ণ শিল্পের কাজ শেখা শুরু করেন। তার শ্বশুরের একটি স্বর্ণকারের দোকান রয়েছে বামনগোলায এলাকাতেই । ওই দম্পতির মধ্যে যে কোনো রকম গোলমালের কথা পরিস্কার করে জানাতে পারি নি মৃতের পরিবার । তবে স্ত্রীর প্রতি স্বামীর নাকি সন্দেহ ছিল । এনিয়ে হয়তো এই মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটে থাকতে পারে বলে অনুমান পুলিশের।

 

জানাগিয়েছে,গৃহবধূর মাথার পিছনে গভীর ক্ষত রয়েছে।  মৃতদেহটি ঘরের মেঝেতে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়েছিল।মৃতদেহের পাশ থেকে একটি হাতুড়ি উদ্ধার করেছে পুলিশ । তারা করছেন ওই গৃহবধূকে হাতুড়ি দিয়ে মাথায় আঘাত করে খুন করা হয়ে থাকতে পারে।  পাশাপাশি ওই ঘরের বিছানার উপর সিলিং-এর সঙ্গে গলায় গামছা জড়ানো ঝুলন্ত অবস্থায় স্বামীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এমন কোনোও  ঘটনা স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঘটে থাকতে পারে, যা নিয়ে স্ত্রীকে খুন করার পরে স্বামী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছে। পুলিশ দুইটি মৃত দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তর জন্য মর্গে পাঠায়। তারা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

এই রকম আপডেট পেতে লাইক করুন