অ’ক্সি’জে’ন স’র’ব’রা’হে কেউ বা’ধা দি’লেই ফাঁ’সি দে’ও’য়া হ’বে, ক’ড়া সি’দ্ধা’ন্ত দি’ল্লি হা’ই’কো’র্টে’র

অক্সিজেনের অভাবে ধুঁকছে রাজধানী দিল্লি। করোনা পরিস্থিতিতে অক্সিজেনের অভাবে সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন রোগীরা। অক্সিজেনের অভাবে রোগীর মৃত্যু হচ্ছে এমন নির্দেশনও মিলছে ভুরি ভুরি। দেশের প্রতিটি রাজ্যের এমনই ভয়াবহ পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। তবে সব থেকে ভয়াবহ পরিস্থিতি দিল্লির। রাজধানী শহরের হাসপাতালগুলিতে অক্সিজেনের অভাব দেখা দিয়েছে।

সম্প্রতি এই নিয়ে একটি মামলা দায়ের হয়েছে দিল্লি হাইকোর্টে। হাইকোর্টে দিল্লির তরফের আইনজীবী জানিয়েছেন ৪৮০ তান অক্সিজেন যোগাড় করতে না পারলে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে দিল্লির স্বাস্থ্যপরিসেবা ভেঙে পড়বে। কেন্দ্রীয় সরকার অবশ্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। তবুও দিল্লির পরিস্থিতি সামাল দেওয়া যাচ্ছে না। এই মর্মে কেন্দ্রের কাছ থেকে আর কতটা সাহায্য পেতে পারে দিল্লি, দিল্লির প্রশাসনের তরফের আইনজীবী এদিন তা হাইকোর্টের কাছে জানতে চান।

দিল্লির অবস্থা বিবেচনা করে দিল্লি হাইকোর্টের বিচারপতি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, যদি কেউ বা কারা দিল্লিতে অক্সিজেন সরবরাহে বাধা দেয় এবং এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে একজনের নামও আদালতের কাছে উঠে আসে তাহলে ‌ অভিযুক্তকে সরাসরি ফাঁসির সাজা শোনানো হবে!

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রের তরফের আইনজীবী তুষার মেহেতা অবশ্য ‌ দিল্লির প্রশাসনকে “ছিঁচকাঁদুনে” বলে কটাক্ষ করেছেন। তার দাবি, দেশের প্রতিটি রাজ্য সরকার নিজে থেকেই অক্সিজেন সরবরাহের ব্যবস্থা করছে। পাশাপাশি কেন্দ্র তাদের সাহায্য করছে। অথচ দিল্লির সরকার সমস্ত দায়ভার কেন্দ্রের উপরে চাপিয়ে দিয়ে নিশ্চিন্ত থাকতে চাইছে।