যে কোনো পুরুষ আমাকে ছেড়ে হেমা মালিনীকেই বেছে নেবেন, বোমা ফাঁটালেন ধর্মেন্দ্রর প্রথম স্ত্রী

বলিউডে ড্রিমগাল বলতে আমরা শুধুমাত্র জানি হেমা মালিনী কে। আজও তার রূপের বর্ণনা করতে পিছপা হন না বহু মানুষ। তার সৌন্দর্যের রূপে আকৃষ্ট হয়েছিলেন বহু পুরুষ। তার মধ্যে অন্যতম ছিলেন ধর্মেন্দ্রর। ধর্মেন্দ্র এবং হেমা মালিনীর বিবাহ এবং প্রেম যে কোন সিনেমা কে হার মানিয়ে দেবে। যে সময়ে হেমা মালিনীর ক্যারিয়ার ছিল তুঙ্গে, ঠিক সেই সময় তার প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়েছিলেন ধর্মেন্দ্র। চিন্তা করেছিলেন তাকে বিয়ে করার।কিন্তু ধর্মেন্দ্র ছাড়াও আরও একজন অভিনেতা তখন বিয়ে করার প্রস্তাব নিয়ে গিয়েছিলেন হেমা মালিনীর বাড়িতে। তিনি আর কেউ নয় সঞ্জীব কুমার। হেমা মালিনীর সঞ্জীব কুমার কে মনে মনে ভালো লাগতো কিন্তু ততদিনে বাড়ি থেকে হেমা মালিনীর জন্য পাত্র দেখা ঠিক হয়ে গিয়েছিল, তাই হেমা মালিনীর মা সঞ্জীব কুমার কে খালি হাতে বাড়ি পাঠিয়ে দেন।

হেমা মালিনীর সঙ্গে ঠিক করা পাত্রের নাম ছিল জিতেন্দ্র। নির্দিষ্ট দিনে জিতেন্দ্র এসেছিলেন হেমা মালিনীকে বিয়ে করতে। সেদিন যদি ধর্মেন্দ্র বিয়ের মন্ডপে উপস্থিত না হতেন তাহলে আজ জিতেন্দ্র এবং হেমা মালিনী স্বামী স্ত্রী হতেন। কিন্তু ভগবানের ইচ্ছে একটু অন্যরকম ছিল। হেমা মালিনীর বিয়ের দিন মালা বদল এর সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন ধর্মেন্দ্র। মদ্যপ অবস্থায় তিনি বারবার কথা বলতে চান জিতেন্দ্র এবং হেমা মালিনী সঙ্গে। বেগতিক দেখে তাকে সঙ্গে সঙ্গে পাশের ঘরে নিয়ে চলে যান জিতেন্দ্র। সেখানে তাদের সঙ্গে জান হেমা মালিনী ও।

দরজা বন্ধ থাকায় সেদিন তাদের মধ্যে কি ঘটনা ঘটেছিল সেটা এখনো কেউ জানতে পারেনি। কিন্তু সেদিন খালি হাতে বাড়ি চলে যেতে হয়েছিল জিতেন্দ্র কে। বিয়ে ভেঙে গিয়েছিল হেমা মালিনীর। অন্যদিকে ধর্মেন্দ্র তখন এক ছেলের পিতা। প্রকাশ কৌর কে বিয়ে করেছেন তিনি। স্ত্রী থাকতে তিনি কখনোই বিয়ে করতে পারতেন না হেমা মালিনী কে। তাই মুসলিম নিয়মে তিনি বিয়ে করলেন হেমা মালিনীকে যেটা কেউ মেনে নিতে পারেনি। হেমা মালিনীর মা এক প্রকার ত্যাজ্য সন্তান করে যান হেমা মালিনী কে অন্যদিকে প্রকাশ কৌর, ধর্মেন্দ্রর প্রথম স্ত্রী তার সন্তান নিয়ে আলাদা হয়ে যান। তবে আজও তিনি থাকেন ধর্মেন্দ্রের নিজের বাড়িতে। সেই সময় যখন সকলে ধর্মেন্দ্রকে চরিত্রহীন বলতে শুরু করেন তখন সকলের প্রকাশ্যে এসে প্রকাশ বলেছিলেন যে, দয়া করে উনাকে কেউ খারাপ কথা বলবেন না।হেমা মালিনী এমন একজন সুন্দরী যাকে পাবার জন্য
অপেক্ষা করে থাকেন বহু পুরুষ।

এরপর সময়ের সাথে সাথে অনেক জল গড়িয়ে গেছে। আজ ধর্মেন্দ্রর এবং হেমা মালিনী একসাথে থাকেন না। অভিনেতার রক্ষণশীল ব্যবহার মেনে নিতে পারেননি হেমা মালিনী। দুই সন্তানকে নিয়ে তিনি আলাদা থাকেন। অন্যদিকে ধর্মেন্দ্রর দেশের বাড়িতে সন্তানকে নিয়ে থাকেন প্রকাশ কৌর, যিনি আজও অভিমান করে ধর্মেন্দ্রকে নিজের থেকে দূরে রেখেছেন। যেখানে প্রবেশ করার অধিকার নেই স্বয়ং হেমা মালিনীরও। যেখানে নিজের আত্মসম্মান নিয়ে মাথা উঁচু করে বসবাস করেন ধর্মেন্দ্রর এর প্রথম স্ত্রী।