জ’ঙ্গি’দে’র সমর্থনে দেশবিরোধী পো’স্ট, হরভজনের বি’রু’দ্ধে ক্ষো’ভে ফুঁ’স’ছে জনতা

আমাদের দেশ একটা গণতান্ত্রিক দেশ, এখানে নানান জাতীর মানুষেরা ইচ্ছে মত বাস করতে পারে, এখানে প্রত্যেকটা মানুষ তাদের সুযোগ-সুবিধা বুঝে তাদের পছন্দসই স্থানে বাস করেন। আমরা ভারতীয়রা প্রত্যেকেই নিজেদের ভারতীয় বলে বলতে গর্ববোধ করি, কিন্তু এই গণতান্ত্রিক দেশকে ভেঙে দেওয়ার জন্য চলছে নানান সন্ত্রাস বিরোধী কাজ। এই সন্ত্রাসের সঙ্গে যুক্ত থাকে আমাদের দেশেরই কিছু মানুষ, যারা সন্ত্রাসবাদীদের ভাবনাচিন্তাকে আরো বেশি প্রশ্রয় দিয়েছে।

𝐈𝐬𝐡𝐢𝐭𝐚 𝐉𝐨𝐬𝐡𝐢 🇮🇳 (@IshitaJoshi) | Twitter

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমেই নানারকম প্রতিক্রিয়া আমরা নানান জায়গা থেকে পেয়ে থাকি, ভারত বিরোধী কেউ কিছু বললে গোটা ভারতবর্ষের আনাচে-কানাচে মানুষ তার প্রতিবাদ জানায়।

এইবার সন্ত্রাসবাদের সমর্থন করে এবং ভারতবিরোধী কিছু কথা বলার জন্য সকলের কাছে ভিলেন হয়ে দাড়ালেন ক্রিকেট দলের তারকা স্পিনার হরভজন সিং।

সোশ্যাল মিডিয়ায় হরভজন সিং খলিস্তানি জঙ্গিদের নিয়ে একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন, যার পরে বিতর্কের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে হরভজন সিং। ফলোয়ারদের উদ্দেশ্যে শহীদ দিবসের দিনে তিনি একটি পোস্ট করেছিলেন। পোস্টে তিনি ছবি দিয়েছিলেন কুখ্যাত খলিস্তানি এক জঙ্গি জার্নেল সিং বৃন্দনওবৃন্দনওয়ালের।

এই কুখ্যাত জঙ্গীকে হার মন্দিরে ব্লুস্টার অভিযানের মাধ্যমে ১৯৮৪ সালে হত্যা করা হয়েছিল। চলতি মাসের ৬ তারিখে ব্লুস্টার অপারেশনের বার্ষিকী ছিল ৩৭তম এবং সেই কারণেই তিনি এই ছবিটি ব্যবহার করেছিলেন তার স্টোরি’তে।

যার পর পরই ক্ষোভে ফেটে ওঠে গোটা ভারতবর্ষের মানুষ। তিনি ওই কুখ্যাত জঙ্গীকে শহীদ বলেন। হরভজন সিং ওই পোস্টটি আর মাতৃভাষা অর্থাৎ পাঞ্জাবি ভাষায় লিখেছিলেন। তিনি লিখেছেন,” হারমন্দির সাহিবে ১৯৮8 সালে শহীদ হওয়া সকলের আত্মার শান্তি কামনা করি।” সুতরাং এই জঙ্গিকে তিনি যে শহীদের মর্যাদা দিয়েছেন সেই জন্যই তিনি জড়িয়ে পড়েন এক ভয়ঙ্কর বিতর্কে।

যদিও এর পরেই এই সমস্ত ঘটনার জন্য তিনি ক্ষমা চেয়ে নেন এবং তিনি জানান যে, তিনি কোনদিনও ভারত বিরোধী কিছুকেই সমর্থন করেনা। তিনি আরো বলেন যে, তিনি হোয়াটসঅ্যাপে একটি পোস্ট পেয়েছিলেন এবং যেটাকে না দেখেই ভাল মতো শেয়ার করে ফেলেছিলেন তারপরে এই বিপত্তি।