ইসলাম বিরোধী মন্তব্য, বিপাকে পড়লেন প্রবাসী ভারতীয়, মন্দার বাজারে হারালেন চাকরি

ইসলামবিরোধী পোস্ট করার জন্য বিপাকে পড়লেন রবি হুড়া নামে ভারতীয় বংশোদ্ভুত এক রিয়েল এস্টেট এজেন্ট। তিনি যে সংস্থায় চাকরি করতেন, সেখান থেকে তাঁকে বরখাস্ত করে দেওয়া হয়েছে। একটি স্কুলের পরিচালন বোর্ড ছিলেন তিনি, সেখান থেকেও তাঁকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। ব্রাম্পটনের মেয়র প্যাট্রিক ব্রাউন টুইটারে লিখেছিলেন, ১৯৮৪ সালে চালু হওয়া শব্দবিধি অনুসারে গির্জার ঘণ্টা বাজানোয় ছাড় দেওয়া ছিল।

তার সঙ্গে এ বার নির্দিষ্ট সময় এবং ডেসিবেলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রেখে সব ধর্মকেই এই রকম ছাড় দেওয়া হচ্ছে। মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষজন সূর্যাস্তের আজান দিতে পারবেন। এখন ২০২০ সাল, সব ধর্মকেই সমান ভাবে মর্যাদা দেওয়া উচিত বলে জানান তিনি। এরপরেই রবি হুড়া টুইট করে এই সিদ্ধান্তকে কার্যত কটাক্ষ করেন।

তিনি টুইটে লেখেন, এবার কি উটের পিঠে এবং ছাগলের পিঠে চড়া সওয়ারিদের জন্য রাস্তায় আলাদা লেন হবে? ঈশ্বরকে উৎসর্গ করার নামে ঘরে ঘরে পশুবলির অনুমতি দেওয়া হবে? সব মহিলাকে মাথা থেকে পা পর্যন্ত ঢেকে রাস্তায় বেরোতে হবে? তিনি এই কোথাও লেখেন, মুসলিম সম্প্রদায়ের ভোটের জন্যই আজানে ছাড় দেওয়া হয়েছে।

তবে এই টুইটের নানা মহলে তীব্র বিতর্ক তৈরি হয়, এরপর ওই টুইট তিনি মুছে দেন তিনি। রবি হুড়ার এই টুইটের স্ক্রিনশট নিয়ে অনেকেই তীব্র সমালোচনা শুরু করেছেন। তারপর রবি হুড়া যে সংস্থায় কাজ করতেন, সেখান থেকে তাঁকে বরখাস্ত করা হয়। কানাডার ম্যাকভিলে পাবলিক স্কুলের পরিচালন বোর্ডেও ছিলেন তিনি। সেখান থেকেও তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং তিনি বোর্ডের কোনও বৈঠকে যোগ দিতে পারবেন না বলে জানানো হয়।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন