ফের সমুদ্রে তৈ’রি হ’চ্ছে আ’রো এ’ক ঘূর্ণাবর্ত! কোনদিকে ধা’বি’ত হবে?

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের দাপটের স্মৃতি এখনো রাজ্যবাসীর মনে উজ্জ্বল। ঘূর্ণিঝড়ের দাপট এখন সামাল দিয়ে ওঠা সম্ভব হয়নি। এমতাবস্থায় সাগরে আবার শক্তি বৃদ্ধি করছে আরেকটি নিম্নচাপ। যার ফলে সাগরে নাকি আরেকটি ঘূর্ণাবর্ত সৃষ্টি হচ্ছে বলে জানা যাচ্ছে। এই ঘূর্ণাবর্তের জেরে আগামী রবিবার থেকে দফায় দফায় বৃষ্টিপাত শুরু হবে সারা রাজ্য জুড়ে। এমনটাই জানাচ্ছেন আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা।

ঘূর্ণি ঝড়ের দাপট শেষ হতে না হতেই রাজ্যের উষ্ণতায় পারদ আবার বাড়তে শুরু করেছে। তবে রবিবার থেকে আবারো রাজ্যজুড়ে শুরু হতে চলেছে বৃষ্টি। কলকাতা, হুগলি, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম, পূর্ব মেদিনীপুর, নদিয়া, মুর্শিদাবাদ, হাওড়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, উভয় বর্ধমান, বীরভূমে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার কথা জানানো হয়েছে।

পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের জেলাগুলির মধ্যে দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, মালদা, কালিম্পং, কোচবিহার, দুই দিনাজপুরে আজ থেকেই বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাত শুরু হতে চলেছে। এছাড়াও ঘণ্টায় প্রায় ৩০-৪০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এদিকে হাওয়া অফিসের তরফ থেকে জানানো হয়েছে ৩১শে মে নাকি কেরালা বর্ষা প্রবেশ করেছে। যার ফলে পশ্চিমবঙ্গেও বর্ষা প্রবেশ করার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

পূর্ব মধ্য আরব সাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণবাত ইতিমধ্যেই কর্ণাটক উপকূল পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছে। এই ঘূর্ণবাত নাকি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৩.১ কিলোমিটার উপরে অবস্থান করছে। এই ঘূর্ণবাত কি রকম আকার ধারণ করবে তা আগামী চার থেকে পাঁচ দিনের মধ্যেই বোঝা যাবে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর।