সকলেই রাজনীতিতে, ফাঁকা টলিপাড়া, বন্ধুদের কাছে না পেয়ে একা হয়ে গিয়েছেন অঙ্কুশ

আর কিছুক্ষণের মধ্যেই হতে চলেছে বিধানসভা নির্বাচন। এবারে বিধানসভা নির্বাচন দুটি কারনে সকলের কাছে চমকপ্রদ। একদিকে যেমন বিজেপির এবং তৃণমূল সবরকম চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন একে অপরের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য,তেমনি অন্যদিকে টলিউডের বেশিরভাগ কলাকুশলীরা যোগ দিয়েছেন বিজেপি এবং তৃণমূল শিবিরে। এত বিশাল পরিমাণে কলাকুশলী এর আগে কখনো রাজনীতিতে যোগ দিয়েছেন বলে শোনা যায়নি।

একদিকে যেমন বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন, অভিনেতা যশ দাশগুপ্ত, অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় এর মত নামী দামী ব্যক্তিরা। তেমনই তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন অভিনেত্রী জুন মালিয়া থেকে শুরু করে পরিচালক রাজ চক্রবর্তী সকলেই। তবে এই সমস্ত রাজনীতি থেকে দূরে রয়েছেন বেশকিছু কলাকুশলী তার মধ্যে অন্যতম হলেন অঙ্কুশ।

শুধু অঙ্কুশ নয়, রাজনীতি থেকে নিজেদের সরিয়ে রেখেছেন জিৎ এবং প্রসেনজিৎ। সম্প্রতি টলিপাড়ার তারকাদের রাজনীতিতে যোগ দেওয়া নিয়ে একটি ছবি পোস্ট করেছেন অঙ্কুশ। ছবিতে দেখা যাচ্ছে খুবই মুখ ভার করে রয়েছেন অঙ্কুশ। তিনি সকলকে বলতে চাইছেন যে, তার খুবই মন খারাপ। তার সমস্ত বন্ধুরা চলে গেছে রাজনীতিতে জয়েন করতে। তাই তার সঙ্গে আড্ডা দেবার মতো কেউ নেই।

অঙ্কুশ এর মত অনুযায়ী, তিনি জিৎ এবং প্রসেনজিৎ আপাতত নিজেদের সরিয়ে রেখেছেন রাজনীতি থেকে। কোন দলের রঙে রাঙিয়ে নিতে নারাজ নিজেদের তারা। সামনেই আছে হোলি। দোলের রঙে নিজেদের রাঙাবেন তারা। তারা আপাতত আড্ডা সঙ্গী চাইছেন যারা তাদের সঙ্গে বসে আড্ডা দিতে পারবেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সম্প্রতি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন মিঠুন চক্রবর্তী। মিঠুন চক্রবর্তী কে ব্রিগেডে উপস্থিত দেখে অনেকেই হতাশ হয়েছেন। আবার অনেকেই হয়েছেন উৎফুল্ল। এরমধ্যে কিছুদিন আগে অঙ্কুশ এবং ঐন্দ্রিলা মিঠুন চক্রবর্তী কে ঘিরে একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন। মিঠুন কে জড়িয়ে ছবি শেয়ার করা নিয়ে হয়েছিল জল্পনা-কল্পনা। সকলেই ভেবেছিল যে এবার হয়তো অঙ্কুশ ঐন্দ্রিলা যোগ দিতে চলেছেন বিজেপিতে। তবে সমস্ত জল্পনাকে উড়িয়ে দিয়ে আপাতত নিজের ক্যারিয়ারে মন দিতে চাইছেন তারা, এমনটাই জানিয়েছেন অঙ্কুশ।