আর কি’ছু’ক্ষ’ণ পরেই না’ম’বে বৃ’ষ্টি, ভা’স’বে এ’কা’ধি’ক জে’লা, সাথে চলবে ঝো’ড়ো হা’ও’য়া, জেনে নিন

বুধবার বিকেল থেকেই বজ্রবিদ্যুৎসহ বৃষ্টির জেরে বিগত কয়েকদিনের তীব্র তাপপ্রবাহের হাত থেকে মুক্তি পেয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। বুধবারের পর বৃহস্পতিবারেও রাজ্যের বেশ কিছু অঞ্চলে ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানাচ্ছে আবহাওয়া দপ্তর। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে আবার ঝড়-বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। বুধবারের পরে বৃহস্পতিবারও সাময়িক স্বস্তি পেতে চলেছে বাঙালি।

প্রসঙ্গত বৃহস্পতিবার কলকাতা সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। পাশাপাশি শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। বাতাসে অতিরিক্ত আপেক্ষিক আর্দ্রতা অবশ্য অস্বস্তি বাড়িয়েছে দিনে। তবে আজ পশ্চিম মেদিনীপুর, পশ্চিম বর্ধমান, উভয় 24 পরগনা, পুরুলিয়া, নদীয়া, মুর্শিদাবাদ, বীরভূম সহ রাজ্যে একাধিক প্রান্তে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

দক্ষিণবঙ্গের পাশাপাশি উত্তরবঙ্গেও আকাশের মুখ ভার। দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিংপং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, উভয় দিনাজপুর এবং মালদায় আজ বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। এর সঙ্গে অবশ্যই ঘণ্টায় প্রায় ৩০-৪০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

বিগত কয়েকদিনের তীব্র দাবদাহের পর বুধবার আকস্মিক বৃষ্টিপাতের দরুন রাজের তাপমাত্রা কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণের মধ্যে এসেছিল। যার ফলে স্বস্তিতে রাজ্যবাসী। আজও রাজ্যের একাধিক জায়গায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। অতএব রাজ্যবাসীর স্বস্তি আরো কয়েক ঘণ্টা স্থায়ী হতে চলেছে।