প্রার্থীদের মধ্যে আছে একাধিক “গদ্দার”, বিস্ফোরক মন্তব্য তৃণমূল সুপ্রিমো মমতার

হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। একের পর এক বিতর্ক। অভিনেতা-অভিনেত্রীদের রাজনীতিতে প্রবেশ, এই সব কিছু নিয়েই এবারের বিধানসভা নির্বাচন সরগরম। এই লড়াই মূলত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং নরেন্দ্র মোদির। দুজনেই আপ্রাণ চেষ্টা করছেন নিজেদের দলকে সকলের সামনে তুলে ধরার। তবে মন্তব্য করতে গিয়ে মাঝে মাঝেই বেফাঁস মন্তব্য করে বসছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিছুদিন আগে তার পায়ে আঘাত নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় উঠেছিল রঙ্গরসিকতার ঝড়। আরো একবার শুক্রবার কোচবিহারে জনসভায় বেফাঁস মন্তব্য করে খবরের শিরোনামে উঠে এলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শুক্রবার থেকে তার উত্তর বঙ্গে ভোট প্রচার শুরু হয়ে গেছে। ভোট গ্রহণের মাধ্যমে তৃণমূল কে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। সেই আহ্বান জানাতে গিয়ে হঠাৎ করেই বেফাঁস মন্তব্য করে বসলেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, আমার দু’শোর বেশি আসন চাই। না হলে গাদ্দারদের কিনে নিয়ে সরকার গড়বে বিজেপি। এর আগেও তাকে টাকা দিয়ে কিনেছে তারা। তৃণমূল যদি দু’শোর বেশি আসন না পায় তাহলে আরো একবার একই কাজ করবে বিজেপি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিভিন্ন রাজ্যে প্রশাসনিক ক্ষমতা ব্যবহারের অভিযোগ এসেছে বিজেপির বিরুদ্ধে।কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে সেইরকম ঘটনা ঘটার খবর সেরকম পাওয়া যায়নি। বরং বলা ভালো ক্ষমতায় আসার পর বিরোধী বিধায়কদের টাকার লোভ দেখিয়ে দল বদল করার জন্য চাপ দিয়েছে তৃণমূল। কিন্তু এবার ভোটের মধ্যে সেই একই কাজ করার জন্য বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগ আনলেন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নিজের দলের প্রার্থীদের প্রতি এতটাই কেন তার অনাস্তা? সেটা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে বহুবার। তবে যেভাবেই তৃণমূল থেকে দলবদল করে বিজেপিতে যোগদান করেছে নেতা-নেত্রীরা, সেখানে দাঁড়িয়ে এমন অনাস্থা জন্ম নেওয়া খুব অস্বাভাবিক কিছু নয়। বর্তমান বিধানসভার নির্বাচন কোন দিকে মোড় নেবে তা একমাত্র সময় ছাড়া অন্য কেউ বলতে পারবেনা।