অর্ধশত বছর নিরলস পরিশ্রম করে বনকর্মীদের কাঁদিয়ে বিদায় নিল মধুবালা

বনকর্মীদের কাঁদিয়ে বিদায় নিল মধুবালা
প্রতিকী ছবি

আলিপুরদুয়ারঃ করোনার আবহেই নব্বই বছর বয়সে চলে গেলো মধুবালা। পঞ্চাশ বছর আগে কিনে আনা মধুবালার মৃত্যু হয়েছে। মধুবালা জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের কুনকি হাতি। জানা গেছে, দীর্ঘ পঞ্চাশ বছর বনদফতরের কাজ করার পর রবিবার সকালে তার মৃত্যু হয়। বয়স জনিত কারনে মধুবালার মৃত্যু হয়েছে। মধুবালার মৃত্যুতে গোটা জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানে শোকের ছায়া।

জানা গিয়েছে মধুবালার জন্ম ১৯৩০ সালে। পৃথিবীর সব থেকে বড় পশুমেলা বিহারের শোনপুর মেলা থেকে ১৯৬৯-৭০ সালে রাজ্য বনদফতর তাকে কিনে আনে। তার পর প্রায় অর্ধশতক ধরে জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের জঙ্গল পাহাড়া সহ নানান কাজ করেছে। ইতিমধ্যেই ৮ সন্তানের জন্ম দিয়েছে মধুবালা। সম্প্রতি মধুবালার অবশিষ্ট সব দাত পড়ে গিয়েছিল এবং প্রায় কিছুই খেতে পারছিল না । বয়স জনিত নানান রোগও শরীরে বাসা বেধেছিল। অবশেষে রবিবার ভোরে ময়রাডাঙ্গা বিটে তার মৃত্যু হয়।

জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের ডি এফ ও কুমার বিমল বলেন, “দীর্ঘ পঞ্চাশ বছর তার অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা কোনদিন ভুলবে না জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান। তার মৃত্যুতে আমরা শোকাহত। জাতীয় উদ্যানের একটি অপূরনীয় ক্ষতি হয়ে গেল। বয়স জনিত কারনে মধুবালার মৃত্যু হয়েছে।”

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন