একটু পর পরই রং ব’দ’ল করছে কো’নো অজানা প্রা’ণী, আ’ত’ঙ্কে ছোটাছুটি গ্রামজুড়ে

সম্প্রতি পুরুলিয়ার বলরামপুরে বিরল প্রজাতির একটি প্রাণী উদ্ধারকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয়ে উঠেছিল এলাকা। এলাকার বাসিন্দারা এদিন গিরগিটির মতো একটি প্রাণীকে ঘনঘন রং বদলাতে দেখেন। গিরগিটির সঙ্গে তার মিল থাকলেও সেটি আদতে গিরগিটির চেয়ে আকারে অনেক বড় ছিল। যে কারনেই কার্যত এলাকার বাসিন্দাদের মনে আতঙ্ক দানা বাঁধে। প্রাণীটিকে কেন্দ্র করে উৎসাহ দেখা যায় সাধারণের মনে।

এদিন গ্রামের একজন মহিলা প্রথম ওই গিরগিটির মতো দেখতে প্রাণীটিকে দেখতে পান। এরপর খবর পেয়ে এলাকায় ভিড় জমান গ্রামের অন্যান্য বাসিন্দারা। তারা সকলেই প্রাণীটিকে ক্যামেরাবন্দি করেছেন। আতঙ্কিত এলাকার বাসিন্দারা দ্রুত বন দপ্তরকে খবর দেন। বন দফতরের কর্মীরা এসে উদ্ধার করে নিয়ে গিয়েছেন। এই ধরনের প্রাণী ওই এলাকায় এই প্রথম দেখা দিলেও এটি একেবারে অজানা প্রাণী নয় বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ওই প্রাণীটি আসলে ক্যামেলিয়ন অর্থাৎ গিরগিটির প্রজাতি। শুধু আকারে বড়। গিরগিটির প্রজাতি হওয়ার দরুন সে ঘনঘন রং বদলাতে পারে। তাকে নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই বলেও জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। প্রাণীটিকে আপাতত বনদপ্তরের তত্ত্বাবধানেই রাখা হয়েছে। কিছুদিন প্রাণীটির উপর নজর রেখে তারপর সেটিকে জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

পুরুলিয়া জেলার বলরামপুর ব্লকের রাঙ্গাডি এলাকায় দেখা যায় এই অদ্ভুত প্রাণীটিকে। এলাকার বাসিন্দারা ওই প্রাণীটির নাম দিয়েছেন বহুরূপী সাপ। তবে সাপের মত মানুষের ক্ষতি করে না সে। জঙ্গলের কীটপতঙ্গ খেয়েই বেঁচে থাকে গিরগিটির এই প্রজাতি, জানালেন বিশেষজ্ঞরা।