I Quit লিখে ফেসবুক লা’ইভ’ করে আ’ত্ম’হ’ত্যা’র চে’ষ্টা বাংলা সিরিয়ালের অভিনেতার, দেখুন ভিডিও

করোনার দরুন কাজ হারিয়েছেন বহু শিল্পী। বিশেষত অভিনয় জগতের সঙ্গে যারা জড়িত দীর্ঘ দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে মহামারীর বিরুদ্ধে তাদের লড়াইটা সর্বাধিক ভয়াবহ। কারণ তাদের লড়াই শুধু ভাইরাসের বিরুদ্ধে নয়, তাদের লড়াইটা বেকারত্বের বিরুদ্ধেও। এমতাবস্থায় প্রতিদিন ভবিষ্যৎ চিন্তা করতে করতে ডিপ্রেশনে চলে যাওয়াটাই স্বাভাবিক। তবে ডিপ্রেশনের দরুন জীবনের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে নেওয়াটা কি বাস্তবসম্মত?

সম্প্রতি টেলি পর্দার জনপ্রিয় মুখ শুভ চক্রবর্তী এরকমই একটি সিদ্ধান্ত নিলেন। তাও আবার সোশ্যাল মিডিয়ায়, অনুরাগীদের সামনে। এদিন তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় ফ্যানেদের সঙ্গে বসে রীতিমতো আড্ডা দিচ্ছিলেন। অনুরাগীদের সঙ্গে কথা বলেন, গিটার হাতে করে তাদের গানও শোনান। তবে তিনি পরমুহুর্তেই কি করতে চলেছেন, অনুরাগীরা তা বিন্দুমাত্র টের পাননি।

এখানে ক্লিক করে দেখুন ভিডিও

নেটিজেনদের সঙ্গে গল্প করার ছলেই তিনি জানান নিজের আর্থিক দুরবস্থার কথা। তিনি জানিয়েছিলেন যে লকডাউনের দরুন তার হাতে কোনো কাজ নেই। ৩১ বছরের বেকার তিনি! প্রতিনিয়ত এই বেকারত্বের সঙ্গে লড়াই করতে করতে তিনি মানসিকভাবে বিধ্বস্ত। ডিপ্রেশনে চলে গিয়েছেন। এই জীবন থেকে মুক্তি পেতে চান তিনি। হাতের শিরা কেটে বা ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহনন তার মোটেই পছন্দ নয়! ঘুমের ওষুধেই মুক্তির পথ খুঁজে নিলেন তিনি।

অভিনেতা জানিয়েছেন যে একজন হাই প্রেশারের রুগী যদি এই ওষুধ খেয়ে নাও তাহলে সঙ্গে সঙ্গে হার্ট অ্যাটাক করে মৃত্যু অবধারিত। এই বলেই তিনি ওষুধটি গিলে ফেলেন। এদিকে উৎকন্ঠিত অনুরাগীরা তৎক্ষণাৎ থানায় ফোন করে দেন। পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে। প্রসঙ্গত, শুভর বাড়িতে সেই সময় তার মা এবং বোন উপস্থিত ছিলেন। তবে পাশের ঘরে বসে শুভ কি করছেন, তা মোটেই টের পাননি তারা। অভিনেতা আপাতত সুস্থই আছেন।