কেন্দ্রের নতুন সিদ্ধান্তে দাম বাড়ছে আলু পেঁয়াজের! ভোগান্তি বাংলাবাসীর

কেন্দ্রের নতুন সরকারী আদেশনামা, যার ফলে রাজ্যের নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছে আলু পেঁয়াজের ওপর থেকে। কেন্দ্রের নতুন সিদ্ধান্তে বিপাকে রাজ্য, একটা সময় রাজ্য চাইলেই নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের ওপরে দাম নিয়ন্ত্রণ করতে পারত, কিন্তু সেটাই এবার হাত ছাড়া হয়েছে রাজ্যের তরফ থেকে, কারণ সেই তালিকা থেকে বাধ দিয়েছে পেঁয়াজ ও আলুর নাম। যে কারণে পেঁয়াজ ও আলুর দাম আকাশ ছোঁয়া, পেঁয়াজের ঝাঁঝে কোনমতেই পেঁয়াজের সম্মুখীন হতে পারছে না মধ্যবিত্তেরা। আর সেটাক কেন্দ্র করেই বৃদ্ধি পাচ্ছে কৃষিকর্তাদের অভিযোগ।

হিমঘরে রাখা আলু বাজারে ছাড়া শুরু করেছে সরকার কিন্তু তাও তেমনভাবে আলুর দামে পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে না, একটা সময় পেঁয়াজের দাম বেড়েছিল অনেকটাই কিন্তু সেটাকে সামাল দেওয়া গেছে, কিন্তু ফের এই বৃদ্ধি কোনোভাবেই সামাল দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। আলুর সাথে তাল মিলিয়ে চলছে পেয়াজও। তাই মহারাষ্ট্র থেকে পেঁয়াজ রাজ্যে না আসলে দাম আরও বৃদ্ধি পাবে। রাজ্যের হিসেবে দৈনিক পেঁয়াজ লাগে ৫৫-৬০ হাজার টন। আর যেটা আসে রাজ্যের বাইরে থেকে, কিন্তু এইসময়ে পেঁয়াজের দাম আকাশছোঁয়া হওয়ায় সেটার প্রভাব পরেছে সব জায়গায়।

তাই এখন যদি রাজ্য চায় এই আলু পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণ করতে সেটা কোনোমতেই পারবে না, এর আগে ৪ জুলাই ও ৭ সেপ্টেম্বর মাসে যখন পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পেয়েছিল তখন রাজ্যের তরফ থেকে আদেশ নামার জোরে আলুকে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য হিসেবে গণ্য করা হয়েছিল ও দাম কমানো হয়েছিল, কিন্তু এবার আর কোনোভাবেই সেই ক্ষমতা নেই রাজ্যের হাতে। এখন জ্যোতি আলুর দাম ৩৬-৩৭ টাকা কেজি, সরকার নিজের থেকেই আলু হিমঘরে রেখেছিল ৪২ হাজার টন। এদিকে হিমঘরে মোট আলু আছে ১৫ লক্ষ মেট্রিক টন, যা এখন রাজ্য উৎসবের মরশুমের কথা মাথায় রেখে ছাড়া শুরু করে ঠিকই তারপরেও দেখা যাছে দাম কমার নেই কোনো লক্ষণ।