রা’স্তা থেকে একেবারে মিঠুনের বিলাসবহুল বা’ড়ি, জানুন মহাগুরুর দত্তক ক’ন্যা’র জী’ব’ন কা’হি’নী

টলিউড ইন্ডাস্ট্রি একজন খ্যাতনামা অভিনেতা হলে মিঠুন চক্রবর্তী। অভিনয় জগতের পাশাপাশি তিনি চিরটা কাল মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছেন। অভিনয় দক্ষতা তার যতটা ভালো, ব্যক্তিগত জীবনে তিনি একজন ভালো মানুষ হিসেবে চিরকাল পরিচিতি লাভ করেছেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বিয়ে করেন যোগিতা বালি কে। বিবাহিত জীবনে তার তিনটি ছেলে এবং একটি কন্যাসন্তান রয়েছে।

তবে অভিনেতার কন্যা প্রাপ্তির পিছনের ঘটনা তার প্রতি আমাদের ভালোবাসা এবং শ্রদ্ধা অনেক গুণ বাড়িয়ে দেয়। তার নিজের দুই পুত্র সন্তান রয়েছে, কিন্তু যে সন্তানকে তিনি মেয়ে হিসেবে পরিচিতি দেন, তিনি আদৌ তার নিজের সন্তান নয়। যদিও মিঠুন চক্রবর্তী কোনোদিন এইকথা কালকে নিজে থেকে প্রকাশ করেননি।

বহু বছর আগে কলকাতার একজন পথচারী এক ডাস্টবিনের পাশে একটি কন্যা সন্তানকে পড়ে থাকে দেখতে পেয়েছিলেন। সেই মুহূর্তে তারা পুলিশে খবর দেন। পুলিশ সেই ছোট্ট সন্তানকে উদ্ধার করে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের হাতে তুলে দেন। খবরটি কিছুদিনের মধ্যেই পেয়ে গিয়েছিলেন অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। সেই মুহূর্তে তিনি একজন কন্যা সন্তানকে দত্তক নেওয়ার জন্য ছোটাছুটি করছিলেন। এই খবরটি পাবার পর তিনি শিশুটিকে দত্তক নেওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত নেন এবং পুলিশের সাথে যোগাযোগ করেন।

শীর্ণকায় রুগ্ন ওই শিশুটিকে সারারাত কোলে নিয়ে বিভিন্ন আইনি সমস্যা মিটিয়ে ছিলেন অভিনেতা এবং তার স্ত্রী। বাড়ি নিয়ে এসে আদরে বড় করে তোলেন তাকে। অভিনেতা তার নিজের পরিচয় নাম রাখেন দিশানী চক্রবর্তী।

আজ দিশানি অনেকটাই বড় হয়ে গেছে। সিনেমা জগৎ নিয়ে খুবই আগ্রহী দিশানি। নিউইয়র্ক একাডেমী থেকে ফিল্ম স্টাডি নিয়ে পড়াশোনা করেছেন তিনি। খুব তাড়াতাড়ি তাকে দেখতে পাওয়া যাবে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে।

দিশানি ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়াতে ভীষণভাবে একটিভ। তার পরিচিতি সংখ্যা বেশ বড়। তার ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট এ ফলোয়ারের সংখ্যা প্রায় ৮০ হাজার এর বেশী। সোশ্যাল মিডিয়াতে এই বিষয়টি আপলোড হওয়ার পর রীতিমতো গুলো পড়ে গিয়েছিল। সুন্দরী কন্যা যে অদূর ভবিষ্যতে বহু নায়িকাকে পাল্লা দিতে পারবেন তা বলাই বাহুল্য।