নয়া দল ঘোষণার পথে আব্বাস সিদ্দিকী, প্রস্তুতি নিচ্ছে রাজ্যের শাসক দলও

আসন্ন একুশের বিধানসভা নির্বাচনের পেক্ষাপটে তৃণমূল সরকারের অস্বস্তি বাড়িয়ে রাজ্যে ক্রমশই শক্তি বৃদ্ধি করছে আসাদউদ্দিন ওয়েইসির মিম সংগঠন। এবার মুসলীম ধর্মাবলম্বিদের ধর্মগুরু ফুরফুরা শরিফের আব্বাস সিদ্দিকিও তৃণমূলের ভোট বাক্সে থাবা বসানোর পরিকল্পনা করছেন। একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে পুরো দমে রাজনৈতিক আসরে নামছেন আব্বাস সিদ্দিকি। মিমের সঙ্গে নয়, সম্পূর্ণ নতুন দল গঠন করতে চলেছেন সিদ্দিকি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সম্প্রতি মিম প্রধান আসাদুউদ্দিন ওয়েইসির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন আব্বাস সিদ্দিকি। উভয়ের বৈঠকের পর রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন উঠতে শুরু করে, সম্ভবত মিমের সঙ্গে যোগদান করতে চলেছেন আব্বাস সিদ্দিকি। তবে সেই জল্পনা উড়িয়ে দিয়েছেন তিনি নিজেই। শুক্রবার একটি সাংবাদিক বৈঠকের আয়োজন করে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, অন্তত দশটি দলকে একত্রিত করে নতুন ফ্রন্ট তৈরি করতে চলেছেন তিনি।

দলিত, মুসলিম এবং পিছিয়ে পড়া সম্প্রদায়ের মানুষদের নিয়েই এই দল গঠন করছেন আব্বাস সিদ্দিকি। এদিনের সাংবাদিক বৈঠকে তিনি ঘোষণা করেন, আসন্ন একুশের বিধানসভা নির্বাচনের প্রতিটি কেন্দ্রেই তিনি নিজের দলের তরফ থেকে প্রার্থী দিতে চলেছেন। মূলত, বিজেপির বিরোধিতা করার উদ্দেশ্যেই বাংলার রাজনীতিতে নামছেন আব্বাস সিদ্দিকি।

তবে একুশের বিধানসভা নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে আব্বাস সিদ্দিকির নতুন দল বিজেপির থেকেও তৃণমূলের কপালে চিন্তার ছাপ ফেলছে। কারণ দুই ২৪ পরগনা, মালদহ, মুর্শিদাবাদের মতো জেলাগুলিতে ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকির জনপ্রিয়তা কিছু কম নয়। এমতাবস্থায় আসাদুউদ্দিন ওয়েইসি এবং আব্বাস সিদ্দিকি যদি জোট বাঁধেন, তাহলে তৃণমূলের থেকে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ভোট ছিনিয়ে নিতে পারেন তারা।