টার্গেট একুশের নির্বাচন, ৪৪টি আসনের লক্ষ্যে নতুন দলের নাম ঘোষণা করলেন আব্বাস সিদ্দিক্কি

আসন্ন একুশের বিধানসভা নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে রাজনৈতিক দল গুলি এই মুহূর্তে বাংলা দখলের লড়াইয়ে উঠেপড়ে লেগেছে। বিশেষত বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে বাংলার মসনদকে কেন্দ্র করে জোর সংঘাত বেঁধেছে। তারই মাঝে এবার নতুনভাবে লড়াইয়ের ময়দানে নেমেছেন মিম প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়েইসি এবং সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ধর্মগুরু আব্বাস সিদ্দিকী।

মিমের সঙ্গে নয়, ফুরফুরা শরীফের দো ফ্রন্ট”। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য,”ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট” বাংলার রাজনৈতিক মঞ্চে প্রথম কোনো ধর্মগুরুর দল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করলো। আব্বাস সিদ্দিকী নতুন দল ঘোষণা করে জানিয়েছেন, তার নেতৃত্বাধীন এই দল শুধু সংখ্যালঘু সম্প্রদায় নয়, জাতি ধর্ম নির্বিশেষে সকল পিছিয়ে পড়া সম্প্রদায়ের মানুষের জন্য গড়ে উঠেছে।

এদিন দলের নাম ঘোষণা করার সময় আব্বাস সিদ্দিকী বলেন, স্বাধীনতার পর থেকেই ধর্মনিরপেক্ষতার নামে বহু রাজনৈতিক দল এতদিন রাজনীতি করেছে। তবে গুটি কতক মানুষ ছাড়া এই রাজনৈতিক দলগুলি থেকে কারোর বিশেষ কোনো সুবিধা হয়নি। মুসলিম, দলিত, আদিবাসী সম্প্রদায় এমনকি হিন্দু সম্প্রদায় ভুক্ত একটি বড় অংশের মানুষও আজ অবহেলিত।

আব্বাস সিদ্দিকী আরও বলেছেন, রাজ্যের বহু মানুষ আজ অন্ধকারের মধ্যে ডুবে রয়েছেন। স্বাস্থ্য, শিক্ষা প্রভৃতি খাতে তারা কোনো সুবিধাই পান না। “ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট” জাতি-ধর্ম-বর্ণনির্বিশেষে সকল মানুষের কন্ঠ হয়ে উঠবে। পিছিয়ে পড়া মানুষদের কাছে খাদ্য, শিক্ষা, বাসস্থানের মতো মৌলিক অধিকার গুলি পৌঁছে দেওয়ার প্রয়াস চালাবে। আব্বাস সিদ্দিকীর ভাই নৌসাদ সিদ্দিকী এই দলের চেয়ারম্যান হয়েছেন। একুশের লড়াইয়ে সংখ্যালঘু প্রধান ৪০টি আসনে লড়তে চলেছে আব্বাস সিদ্দিকীর দল।