এক জওয়ান বন্দি মাওবাদীদের হাতে, এসেছে রহস্যজনক ফোন, চলছে নিরাপত্তারক্ষীদের অভিযান

ছত্রিশগড়ের বিজাপুরে মাওবাদীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের পর কেটে গিয়েছে 48 ঘন্টা। হামলার পর এখনো থমথম করছে সম্পূর্ণ বিজাপুর। ঘটনার জেরে শহীদ হয়েছেন ভারতীয় নিরাপত্তারক্ষী বাহিনীর ২২ জন সেনা জওয়ান। তাদের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে শোকগ্রস্ত সারাদেশ। তবে এখনো নিখোঁজ একজন। তাকে কেন্দ্র করেই নতুন জল্পনা সূত্রপাত ঘটেছে।

নিখোঁজ ওই সেনা আধিকারিক নাকি এখন মাওবাদীদের হাতে বন্দী রয়েছেন। তিনি নিরাপদে রয়েছেন, সুস্থ রয়েছেন। আগামী দুই থেকে তিন দিনের মধ্যেই তাকে ফিরিয়ে দেওয়া হবে। পরপর দুইটি উড়ো ফোনে সম্প্রতি এমনটাই জানানো হয়েছে। বিশিষ্ট সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, মাওবাদী হামলায় প্রধান চক্রী তথা মাও নেতা হিডমার নামেই এসেছিল এই উড়ো ফোন।

ওই পুলিশ আধিকারিক সুস্থ রয়েছেন জানতে পেরে তার স্ত্রী সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে লিখিত চিঠি মারফত স্বামীকে নিরাপদে ফিরিয়ে আনার আর্জি জানিয়েছেন। বিজাপুর প্রেস ক্লাবের প্রেসিডেন্ট গণেশ মিশ্র জানিয়েছেন, মাওবাদীরা অবশ্য নিজেদের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক। তবে দুটি উড়ো ফোন মারফত জানা গিয়েছে আগামী দুই থেকে তিনদিনের মধ্যেই তারা নিখোঁজ জবানকে সুস্থভাবে ফিরিয়ে দেবে।

প্রসঙ্গত, হামলার ঘটনার পর ২৩ জনের মধ্যে থেকে ২২জন সেনা জওয়ানকে হত্যা করার পর একজনকে কেন নিজেদের হেফাজতে রেখেছে মাওবাদীরা তা ভাবাচ্ছে প্রশাসনকে। ঘটনার পর অবশ্য আধাসেনার বিরাট বাহিনী ইতিমধ্যেই ওই জঙ্গলে ঢুকে পড়েছে বলেই খবর মিলেছে।