টিভি সেট লাগিয়ে পথকুকুরদের “বাড়ি” বানিয়ে দিলেন অসমের যুবক, তার কীর্তি ভাইরাল নেট দুনিয়ায়

অসমের যুবকের এক প্রচেষ্টা রাস্তার কুকুরদের জন্য। টেলিভিশন সেট দিয়ে তৈরি করল তাদের জন্য একটি বাড়ি। আমরা বাড়িতে নানারকম বসে থাকি আমরা খুব আদরে পেট বলে থাকি যে যার ইচ্ছেমতো পছন্দ সেই প্রাণীকে পসে সুন্দর সুন্দর নাম রাখা হয় তাদের জন্য সময়ে সময়ে খাবার আনা হয়, যত্ন নেওয়া হয় কারণ তারা আমাদের বাড়ির সদস্য। কিন্তু আমরা একদিকে যখন কোন প্রাণীকে ভালোবেসে বাড়িতে নিয়ে আসি তখন কেন শুধুমাত্র সেই প্রাণীটিকে ভালোবাসি কেন পারি না সেই প্রাণীর সম্পূর্ণ জাত টাকেকে ভালবাসতে?

সেটা বাড়ির হোক কিংবা রাস্তার । বাড়ির পোষা যা ইচ্ছে করুক আমরা সহ্য করেনি কিন্তু বাইরের সেই প্রাণী যদি কোন কিছু করে তাহলে তাদের যথাযথ শাস্তি দেওয়ার জন্য আমরা উঠেপড়ে লাগি। কতজন ভাবি সেই সমস্ত রাস্তার প্রাণীদের কথা? গোটা বিশ্বে হয়তো গুনতি কয়েক লোক আছে যারা ঘরের পাশাপাশি বাইরের প্রাণীদের কথাও চিন্তা করে থাকে। রাস্তায় প্রত্যেকদিন প্রাণী মারা যায় কেউ কেউ মেরে ফেলে। কতজন ভাবে তাদের কথা, যে প্রাণী গুলো ঝর ঝর বৃষ্টিতে থরথর করে কাঁপে কিংবা ভেজে। এইবারে এই ভাবনাটাই এল একজন যুবকের মাথায়।

তিনি অসমের একজন নাম অভিজিৎ দোওরা। তিনি রাস্তার কুকুরদের জন্য কিছু অভিনব চিন্তা করলেন। কত কিছুই তো আমাদের আশেপাশে পড়ে থাকে যা আমরা হয়তো ব্যবহার করিনা ভেবেও দেখিনা যে সেই জিনিসগুলো দিয়ে এমন কিছু জিনিস তৈরি করা যায় কিনা যা দিয়ে হয়তো অন্যদের সুবিধা হয়। হ্যাঁ কখনোই আমরা এটা সবাই চিন্তা করি না! তবে এই অসমের যুবক অভিজিৎ তিনি রাস্তার কুকুরদের জন্য বানালেন একটি ছোট্ট ঘর তাও আবার কাঠের বাক্স টিভি দিয়ে।

ওই ছোট্ট ঘরটি বানিয়ে রাস্তার সে রেখে দেয় অভিজিৎ যখনই ঝড় বৃষ্টি হোক না কেন খুব সহজেই ওই ঘরের মধ্যে আশ্রয় নেয় কুকুরগুলো। অভিজিৎ জানিয়েছে যে, তিনি দেখেছেন ওই কুকুরের বাচ্চাগুলোকে রোদে, বৃষ্টিতে, শীতে কষ্ট পেতে। এবং তাদের মা বাচ্চা গুলোকে নিয়ে বাঁচানোর চেষ্টা করেছে। এই ব্যাপারটি তিনি পুরো দেখে এই রকম একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং ঘরে তাদের পড়েছিল একটি বাতিল রঙিন টিভি সেই টিভি টিকেই ব্যবহার করে অভিজিৎ তাদের জন্য বানানো একটি ছোট্ট ঘর অনায়াসে কুকুরের বাচ্চা গুলো খুব আনন্দেই থাকে। ঘরটির নাম দিয়েছেন বাটর ঘর। এই ঘটনাটি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ পেতেই যথেষ্ট ভাইরাল হয়ে গেছে।