মন্দিরের ভিত পুজোতে ব্যবহার করা হলো ১ কুইন্টাল ঘি, ১৫০০ লিটার দই ও ১১ হাজার লিটার দুধ

লকডাউনে দ্রব্যমূল্যের দাম আকাশ ছুঁয়েছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় আলু, পেঁয়াজ, সবজি থেকে আরম্ভ করে শিশুদের খাদ্যদ্রব্যের মূল্যও বেড়েছে। এমনকি রিপোর্ট বলছে, বিগত কয়েক মাস যাবত শিশুদের দুধেও পড়েছে টান। দুধের দাম এই মুহূর্তে প্রায় ৭ শতাংশ হারে বেড়েছে। তবুও দেবতাকে তুষ্ট করতে কিন্তু পিছুপা নন ভক্তরা। উপাস্য দেবতার আরাধনায় তাই লিটার লিটার দুধ-দই, প্রায় এক কুইন্টাল ঘি অর্পণ করলেন রাজস্থানের গুর্জর সম্প্রদায়ের ভক্তরা।

এহেন ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থানের জ্বালাওয়ার জেলায়। সৌজন্যে, দেব নারায়ণের মন্দির প্রতিষ্ঠা। মন্দিরের ভিত পুজা ইতিমধ্যেই নেটিজেনদের নজর কেড়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে মন্দিরের ভিত পূজার উদ্দেশ্যে খোদাই-করা মাটিতে লিটার লিটার দুধ-দই, ঘি ঢেলে চলেছেন বহু মানুষ। মন্দির কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে জানানো হলো, এদিন প্রায় ১১,০০০ লিটার দুধ, ১,৫০০ লিটার দই এবং এক কুইন্টাল মতো ঘি মাটিতে ঢেলেছেন ভক্তরা।

মন্দির কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে রামলাল গুজার জানালেন, এই এত পরিমাণে দুধ দই এবং ঘি ক্রয় করতে কমপক্ষে ১.৫০ লক্ষ টাকা খরচ হয়েছে। তিনি আরো জানালেন, এইভাবে দেবতাকে সন্তুষ্ট করা গুর্জর সম্প্রদায়ের ঐতিহ্য। অতীতেও যা হয়েছে, বর্তমানেও তার অন্যথা হলো না। তার মতে, গুর্জর সম্প্রদায়ের নীতি অনুসারে এই এত পরিমাণ দুধ, দই, ঘি সহযোগে দেবতার আরাধনা করলে দেবতা সন্তুষ্ট হন।

তিনি এও বলেছেন, গুর্জর সম্প্রদায়ের মানুষের বিশ্বাস অনুসারে দুধ, দই, ঘি দিয়ে দেব নারায়নের পূজা করলে, তিনি সন্তুষ্ট হবেন। গবাদি পশুদের রক্ষা করবেন। দেব নারায়নের আশীর্বাদ লাভ করতেই এই ব্যাপক আয়োজন করা হয়েছে। তিনি আরো জানালেন, দেব নারায়নের মন্দির স্থাপিত হতে অন্তত এক কোটি টাকা খরচ হবে বলে মনে করা হচ্ছে।