‌মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কোনও প্রভাব পড়বে না ভারতে, দাবি বিদেশসচিব শ্রিংলার

এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আসা যায় নি। আর সেই কারণেই জোড় দিয়ে বলা যাচ্ছে না আগামী ৪ বছরের জন্য কে হবে মার্কিন প্রসিডেন্ট, কখনও ডোনাল্ড ট্রাম্প ও কখনও জো বিডেন, কিন্তু স্পষ্ট এখনও কেউ না। কিন্তু তাদের এই লড়াই নিয়েই ইতিমধ্যে ভারতে আলোচনা শুরু হয়ে গেছে। কারণ এই আগামী মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ওপরেই নির্ভর করছে ভারত ও আমেরিকার সম্পর্ক। তবে এই নিয়ে অনেকের মনের ভুল চিন্তাকে দূর করলেন ভারতের বিদেশ সচীব হর্ষবর্ধন শ্রীংলা।

তিনি গতকাল বুধবার এক সাংবাদিক বৈঠকে জানিয়েছেন, কখনই মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ওপরে দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নির্ভর করে না। তাই এই নিয়ে স্পষ্ট জানিয়েছেন, আসলে কোনোভাবেই দেশের নির্বাচনের ওপরে দুই দেশের সম্পর্ক নির্ভর করতে পারে না, আসলে বাহ্রত ও আমেরিকার সম্পর্ক কিন্তু কেবলমাত্র দ্বিপাক্ষিক সমর্থনের কারণেই ভালো।

এই দুই দেশ একে অপরের কাছে বিভিন্ন দিক থেকে নির্ভর করে আছে। দুই দেশের সম্পর্ক গভীর তো বটেই সাথে বহুদিকে বিস্তৃত। তাই দুই দেশের সম্পর্কে এই নির্বাচন নিয়ে কোনো প্রভাবই পরবে না। শেষে তিনি বাহ্রতের প্রধানমন্ত্রীর সাথে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সম্পর্ক নিয়ে কথা বলেছেন, এখন যদি সেখানে জো বিডেন হয় প্রেসিডেন্ট তাহলে কি সম্পর্কে প্রভাব পরবে, তখন তিনি জানায় একটা সময় বারাক ওবামা ছিলেন তখনও তার সাথে ভালো সম্পর্ক ছিল প্রধানমন্ত্রীর।

একেবারে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন শেষের দিকে, দারুণ ভাবে হাডাহাড্ডি লড়াই চলছে দুই জনের মধ্যে। কখনও ট্রাম্প এগিয়ে আবার কখনও বিডেন। যেখানে ম্যাজিক ফিগার ২৭০, সেখানে বিডেন ২২৪ টি আসন জিতেছেন , আর ট্রাম্প ২১৩ টি আসন। তাই এখনই হাল ছেড়ে দেওয়ার কিছুই নেই, সবাই তাকিয়ে আছে নর্থ ক্যারোলিনা, পেনসিলভেনিয়া, নেভাডার মতো প্রদেশের দিকে। কারণ কখনও রিপাবলিকান দলের দিকে আবার কখনও ডেমক্রেটের দিকে। এখন আর মাত্র কয়েক ঘন্টা, তার পরেই নতুন ভাবে হোয়াইট হাউস দখলের লড়াইয়ে কে এগিয়ে সেটা স্পষ্ট হয়ে যাবে।