সেনাবাহিনীর স্থায়ী পদে এবার মহিলারাও, যুগান্তকারী রায় শীর্ষ আদালতের

যুগান্তকারী রায় শীর্ষ আদালতের

ভারতের ইতিহাসে প্রথম সুপ্রিমকোর্ট কোর্টের আরেক বড় রায়। কেননা, এর আগে কোনোদিন এমন ধরনের কার্যকলাপ হয়ে দেখা যায় নি। আজ সোমবার শীর্ষ আদালত এই রায় দিল। তারা জানিয়েছে এবার পুরুষদের সাথে সাথে মহিলাদেরও সেনাবাহিনীর নেতৃত্ব দেওয়া হবে। এই নিয়ে প্রথম থেকেই একটা দন্দ্ব চলছিল, দিল্লি হাইকোর্টের রায় চলাকালীন সেটা পৌছায় সুপ্রিমকোর্টে। আর সেখানে এবার এক বড়ো সিদ্ধান্ত। এবার দিল্লি হাইকোর্টের রায়কেও সম্মতি জানালো সুপ্রিমকোর্ট।

আমরা চিরাচরিত মহিলাদের সম্পর্কে যেসব জেনে আসছি, এবার সেই ধারণার বদল ঘটানোর সময় এসে পড়েছে। এবার তার জন্যই এই নতুন ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত। এখানে আদালতে এই নিয়ে বিস্তারে আলোচনা করা হয়েছে। এই নিয়ে আদালত মহিলাদের সম্পর্কে বলেছে, এখন যদি দেখা হয় মহিলাদের শারীরিক বৈশিষ্ট্য বিবেচনা করে এমন রায় কোনো যুক্তিযুক্ত না, কিন্তু তাদের সেই বৈশিষ্ট্যর সাথে এই অধিকারের কোনো সম্পর্কই নেই। এখানে সবার আগে , চিন্তাধারা বদলানোর সময়, এখানে মানুষের ভাবমূর্তি বদলানোর সঠিক সময় এসে গেছে।

এদিকে কেন্দ্রের তরফ থেকে আইনজীবী বলেন, এখানে যুদ্ধক্ষেত্রে মহিলাদের কম্যান্ডিং মেনে নেওয়ার জন্য জওয়ানরা প্রস্তুত নয়, সাথে যুদ্ধক্ষেত্রে মহিলাদের নেতৃত্ব দেওয়াটা যুক্তিযুক্ত নয়। এদিকে মহিলাদের আরও অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয় যেমন মাতৃকালীন ছুটি থেকে শুরু করে আরও অনেক কিছু। কিন্তু এইসব যুক্তিকে উড়িয়ে দিয়ে সুপ্রিমকোর্ট বলেছে, এইসব চিন্তাভাবনা বদলের সময় এসে গেছে।

এই সব কিছুকে দূর করতে হবে। কারণ তাহলেই সেই চিরাচরিত জিনিস থেকে সহজেই বেরিয়ে আসা যাবে। শেষে সেখানে ১৪ বছরের এস এস সিতে মহিলাদের চাকরির বিষয় নিয়েও কথা ওঠে। কিন্তু সুপ্রিমকোর্ট সেই বিষয়ে জানিয়ে দেয়, সকল মহিলাদের স্থায়ী কমিশন দিতে হবে, বিশেষ করে যারা মহিলা অফিসার।