মুখ থুবড়ে পড়লো ভোডাফোন, বিশেষ আর্জি ফিরিয়ে দিল সুপ্রিমকোর্ট

আরও যেনো খারাপ হয়ে যাচ্ছে ভোদাফোনের অবস্থা, কারণ তাদের পাশে যেনো আর কেউ নেই, এমনই পরিস্থিতি দাড়িয়েছে এখন। কারণ আজ ১৭ মার্চ আজ সুপ্রিমকোর্টের শুনানি এই টেলিকম সংস্থার বকেয়া নিয়ে। এর জন্যই আজ ভোডাফোন বকেয়া ৫৩ হাজার কোটি টাকার মধ্যে মাত্র ২৫০০ কোটি টাকা দেওয়ার জন্য প্রস্তুত হয়, কিন্তু সেটা এবার ফিরিয়ে দিয়েছে সুপ্রিমকোর্ট। এদিকে ভারতী এয়ারটেল তাদের বকেয়ার মধ্যে ১০ হাজার কোটি টাকা মিটিয়ে দিয়েছে।

তারা সাথে এটাও বলেছে, বাকি টাকা সুপ্রিমকোর্টের আগামই শুনানির আগেই মিটিয়ে দেওয়া হবে। কিন্তু এইসবের পরেই টেলিকম সংস্থাগুলোকে সুপ্রিমকোর্টে বিচারপতির রোষের মুখে পরতে হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন সময় দেওয়া সত্ত্বেও কেনো টাকা মিটিয়ে দেওয়া হয় নি। এতে কেনো তারা আদালতের অবমাননা করেছেন। বিশেষ করে এই রোষের মুখে পড়েছে সংস্থার আধিকারিকরা। এদিকে টেলিকম সংস্থার এক আধিকারিক কিছুদিন আগে এক নির্দেশিকা জারি করেছিল, সেটা আসলে সুপ্রিমকোর্টের নির্দেশের ওপরে স্থগিতাদেশ।

এর পরেই সরকার এটা জানতে পেরে টেলিকম সংস্থাগুলোকে শুক্রবার মধ্যরাতের মধ্যেই বকেয়া মিটিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেয়। তবে সেটা শুধু মুখের কথাই থেকে গেছে, কারণ এই কথা কোনো সংস্থাই শোনে নি। এদিকে এই সব অবস্থা চলাকালীন ভোডাফোন ও আইডিয়া মোট ৫৩ হাজার বকেয়ার মধ্যে ২৫০০ কোটি ও ১০০০ কোটি টাকা নিয়ে সুপ্রিমকোর্টের দারস্থ হয়, কিন্তু সেই সব কিছু খারিজ করে দেয় সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতি। তাদের স্প্রেকট্রাম ও বকেয়া আছে ২৪,৭২৯ টাকা ও ২৮,৩০৯ টাকা।

এদিকে এয়ারটেল আবার তাদের তরফ থেকে বলা হয়েছে, আমরা ১০ হাজার কোটি টাকা মিটিয়ে দিয়েছি বকেয়ার মধ্যে, এবার বাকি বকেয়া নিয়ে আমরা পুঙ্খানুপুঙ্খ খতিয়ে দেখছি, আশা করছি সুপ্রিমকোর্টের আগামই শুনানির আগেই বাকি টাকা মিটিয়ে দেওয়া হবে। আসলে এয়ারটেলের মোট বকেয়া ৩৫,৫৮৬ কোটি টাকা। তারা আগেই জানিয়েছিল ১৭ মার্চের মধ্যেই ১০ হাজার কোটি টাকা মিটিয়ে দেওয়া হবে, আর তারা এবার তাই করল।।