তৃনমূল-বিজেপি সংঘর্ষে ফের উত্তপ্ত তুফানগঞ্জ, আহত ৬

কোচবিহারঃ তৃনমূল-বিজেপি সংঘর্ষে ফের উত্তপ্ত তুফানগঞ্জ। ঘটনাটি ঘটেছে তুফানগঞ্জ ব্লকের অন্দরনফুলবাড়ি ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত বটতলা বাজার এলাকায়। ওই ঘটনার জেরে দুই পক্ষের ৬ জন আহত হয়। ওই ঘটনার পর আহতদের উদ্ধার করে তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তিনজন বিজেপি কর্মীকে প্রাথমিক চিকিৎসা করে ছেড়ে দেওয়া হয়। বাকি তিনজন তৃনমূল কর্মীর অবস্থা আশঙ্কাজনক। তারা সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছে। ওই ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে তুফান গঞ্জ থানার পুলিশ। ঘটনায় এলাকা উত্তেজনা থাকায় ঘটনাস্থলে মোতায়েন করা হয় পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।আক্রান্ত তৃনমূল কর্মীর অভিযোগ, আজ তারা বটতলা বাজারে যায়। সেই সময় তাঁদের ওপর বিজেপি কর্মীরা আমাদের উপর হামলা চালায়। ওই ঘটনায় আমি ছাড়াও আরও কয়েকজন আহত হয়।

জানি না কি কারনে আমাদের উপর হামলা চালাল বিজেপি আশ্রিত ওই দুষ্কৃতীরা। লোকসভা ভোটে জয় লাভের পর থেকে বিজেপি এলাকায় এভাবে সন্ত্রাস চালাচ্ছে।যদিও এবিষয়ে বিজেপির অন্দরনফুলবাড়ী ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান ধরণী কান্ত বর্মন জানান, আমাকে তৃণমূলের পক্ষ থেকে বার বার পদত্যাগ করতে বলা হচ্ছে। আমি তাতে রাজী না হওয়ায় প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে তৃনমূলের ওই দুষ্কৃতীরা। তারপর আজ কয়েকজন বিজেপি কর্মী বাজার করতে গেলে তাঁদের ওপর হামলা চালায় তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা। ওই ঘটনায় আমাদের তিন জন কর্মী আহত হয়।

যদিও তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা করে পরে ছেড়ে দেওয়া হয়।বিজেপির স্থানীয় নেতৃত্বরা দাবি, আন্দরন ফুলবাড়ীতে তৃণমূলের একটি বাইক মিছিল বের হয়। সেই বাইক মিছিল থেকে বিজেপি কর্মীদের অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে। তার বিজেপি কর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদেরকে হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।যদিও ওই অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূলের জেলা সহ-সভাপতি আব্দুল জলিল আহমেদ জানান, ওই ঘটনায় তৃনমূল কর্মীরা যুক্ত না। আর আমাদের কোন বাইক মিছিল সেখানে হয় নি। বরঞ্চ আজ আমাদের তৃণমূল কর্মীরা বাজারের গেলে তাদেরকে মারধোর করে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। ওই ঘটনায় আমাদের তৃনমূলের ৩ কর্মী গুরুতর আহত হয়ে তুফানগঞ্জ মহাকুমা হাসপাতাল চিকিৎসাধীন রয়েছেন।